এবার অরুণাচল সীমান্তে গতিবিধি জোরদার চিনাফৌজের, প্রস্তুত ভারতীয় সেনাও

এবার অরুণাচল সীমান্তে গতিবিধি জোরদার চিনাফৌজের, প্রস্তুত ভারতীয় সেনাও
15 Sep 2020, 08:19 PM

এবার অরুণাচল সীমান্তে গতিবিধি জোরদার চিনাফৌজের, প্রস্তুত ভারতীয় সেনাও

 

আনফোল্ড বাংলা ডেস্ক: পূর্ব লাদাখে বাধ্য হয়ে পিছু হঠেছে চিনা হানাদার বাহিনী। কিন্তু আশঙ্কা জাগিয়ে এবার অরুণাচল সীমান্তে ‘আগ্রাসী’ গতিবিধি শুরু করেছে লালফৌজ। এই গোটা ঘটনাচক্রের উপর কড়া নজর রাখছে রাখছে ভারতীয় বাহিনী।

সূত্রের খবর, অরুণাচল প্রদেশ সীমান্তে চিনা এলাকার বেশ কিছুটা ভিতরে বিশাল সংখ্যক সেনা মোতায়েন করছে লালফৌজ। তবে এই গতিবিধি নজর এড়ায়নি সীমান্তে মোতায়েন ভারতীয় জওয়ানদের। ফলে যে কোনও পরিস্থিতির মোকাবিলায় তৈরি থাকতে একইভাবে সীমান্তের এপারে অবস্থান মজবুত করা হচ্ছে। এক শীর্ষ সরকারি আধিকারিক জানিয়েছেন, লাদাখ থেকে অরুণাচল প্রদেশ পর্যন্ত চিন সীমান্তে প্রস্তুত রয়েছে ভারতীয় বাহিনী। প্যাংগং হ্রদ সংলগ্ন পাহাড়ি এলাকা ভারতের দখলে চলে যাওয়ায় এবার নতুন ফ্রন্ট খুলতে পারে চিনা সেনাবাহিনী। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে অরুণাচল প্রদেশে ভারত-চিন সীমান্ত। সেখানে আসাফিলা, টুটিং ও ফিশটেল ২ এলাকাগুলিতে সীমান্তের অপরদিকে চিনা গতিবিধি নজরে এসেছে। তাই সেখানে সেনাঘাঁটি আরও মজবুত করেছে ভারত।

গালওয়ান উপত্যকায় ভারত ও চিনের মধ্যে ভয়াবহ সংঘর্ষের পর আলোচনার কথা বললেও ময়দান থেকে ফৌজ সরায়নি বেজিং। লাদাখে দুই দেশের বাহিনীর কোর কমান্ডার স্তরের বেশ কয়েকদফা বৈঠকের পরই ফল হয়নি কিছুই। একইভাবে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ও চিনের বিদেশমন্ত্রীর বৈঠকেও মেলেনি কোনও রফাসূত্র। এহেন পরিস্থিতিতে গত আগস্ট মাসের ২৯ ও ৩০ তারিখ একতরফাভাবে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার অবস্থান বদলে ভারতীয় ভূখণ্ড দখল করতে এগিয়ে আসে প্রায় ২০০ চিনা সৈনিকের একটি দল। তবে এবার প্রস্তুত ছিল ভারতীয় বাহিনী। আগ্রাসন প্রতিহত করে এতদিন পর্যন্ত ফাকা পড়ে থাকা প্যাংগং হ্রদের দক্ষিণে পাহাড়ি অঞ্চলগুলির দখল নিয়ে নেয় ভারতীয় সেনা। বেগতিক দেখে পিছিয়ে যায় লালফৌজ। যদিও চিনের দাবি, তারা সীমান্তে কোনও রকম আগ্রাসন দেখায়নি। উলটে ভারতীয় সেনাদের বিরুদ্ধেই সীমান্ত পার হয়ে উত্তেজনা ছড়াবার অভিযোগ তুলেছে। ভারতীয় সেনা সূত্রে জানা গিয়েছে, প্যাংগং লেকের দক্ষিণের অংশ এখন ভারতীয় সেনার নজরদারিতে রয়েছে। চিনের বাহিনী তাদের সামরিক সরঞ্জাম নিয়ে পিছু হটতে বাধ্য হয়েছে।

Mailing List