বিরূপাক্ষ পণ্ডার চারটি কবিতা

বিরূপাক্ষ পণ্ডার চারটি কবিতা
02 Oct 2022, 10:50 AM

বিরূপাক্ষ পণ্ডার চারটি কবিতা

বিরূপাক্ষ পণ্ডা

 

মাদুলি

 

ছোঁ মারে মৃত্যু

যখন তখন সে

                আমার প্রিয়জনদের

জীবন ঠোঁটে নিয়ে পালায়

 

কেন এই অন্যরকম

বোঝে না ঋষি মুনি

তবে হাজির দর্শন

ক্রমে ক্রমে তৈরি হয় দর্শনশাস্ত্র

 

ছোঁ, একটাই ছোঁ

ঠোকরাবে একদিন

জীবন, প্রশান্তি মহত্ত্ব

                      অমর হবে মেলবন্ধন

বাকি যা কিছু

                      কেড়ে নেবে মরণ।

............

 

সূর্যাস্ত

 

ভাবনাকে নিয়ে ভাবার সময়

খাতায় দাগ কাটে কলম

কাটাকুটি খেলা চলে;

শরীর তখন শূন্যতার চাদর।

হাতে বোতল চোখে চশমা

অঙ্ক মিলিয়ে ভোগ করছি

পেড়ে আনা ফুল। ভালোবাসা

ভুল, বদনাম, চিটাগুড়।

ফলাফল পেকে গেলেই

ভাবনা মেশে পশ্চিম রঙে

.............

 

ঠিকানা

 

তবুও ঠিকানা পেলাম না। প্রতিদিন নতুন গন্ধ সমুদ্র শরীরে। প্রিয়

দিনলিপি যায় ঘন অন্ধকারে অজস্র ভাবনার ঢেউ আছড়ে পড়ে

বুকের পাঁজরে।

এই-ই সেই প্রেম। প্রাথমিক পাঠ বকুল বকুল গন্ধ। তারপর অতি প্রিয় হয় সব সুর ও ছন্দ। সময়ের মায়াকাননে প্রোথিত হয় বীজ। ‘চারাগাছ' নাম নিয়ে ঘঠে যায় সবুজ বিপ্লব। ধারাজলে ধুয়ে যায়

নগ্নতা ও পাপ।

সুতরাং দেখা-অদেখার নাম আকাশ কুসুম কল্পনা।

.............

জঙ্গলযন্ত্রণা

 

বেনামে আঁচড়ে ফেলছি অনেক শরীর

ময়না তদন্তে তোমরা সীমান্তের পাখি

চোখে জল দাঁড়িয়ে দ্যাখে জঙ্গল জমি

গল্পের গরু গাছে, নিউজ ডেস্কে সখী।

 

ডোরাকাটা গেঞ্জী গায়ে রক্তাক্ত জংলী

 আগুনে ঘর পুড়িয়ে চলে কমিটির বাবু

ভেঙে গেছে কবি ও ছবির গ্রামীণ সংবাদ

চাঁদের নীচে দাঁড়িয়ে হাসে পুলিশ মহাপ্রভু।

 

দখল বে-দখল নিয়ে অসভ্যরা খুশী

চকচকে লোভীর চোখ কালবেলার ভেড়া

 যামিনী যাপনে ব্যস্ত মৃত্যু সওদাগর

বাবুর ঘর চিৎপুর সন্ত্রাসের মহড়া।

 

ত্রাসে উল্লাসে ছোটে মাইন থেকে বারুদ

 সরাইখানা, পান্থশালা জো-হুজুরে কাবু

ল্যাপটপ সেলফোন খোঁজে সেদিনের মাও

রক্ত-আঁধারে মেশে কালি-কাগজ-শালু।

 

এই সেই দশকভাবনা সুখ-দুঃখের সই

 ঠিকানা সঠিক কর্তা মড়া ফেরৎ ডাক-চিঠি

 ভয়সহ ছুটে পালায় এফোঁড় ওফোঁড় চাষি

পোড়া ঘর পোড়া হাঁড়ি বইপত্তরও মাটি ।

........

Mailing List