তালডাংরা আসনে ভূমিপুত্র প্রার্থী চেয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতেও তোপ জেলা বিজেপি সভাপতির বিরুদ্ধে

   তালডাংরা আসনে ভূমিপুত্র প্রার্থী চেয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতেও তোপ জেলা বিজেপি সভাপতির বিরুদ্ধে
04 Mar 2021, 08:30 PM

 তালডাংরা আসনে ভূমিপুত্র প্রার্থী চেয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতেও তোপ জেলা বিজেপি সভাপতির বিরুদ্ধে

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন, বাঁকুড়াঃ এলাকায় কোন বহিরাগত প্রার্থী দেওয়া চলবে না।  প্রার্থী যিনি হবেন তাঁকে হতে হবে এলাকার ভূমিপুত্র। এই দাবি নিয়ে সোচ্চার বাঁকুড়া জেলার তালডাংরা এলাকার বিজেপি কর্মীদের একাংশ। এই দাবি তা তুলে ধরেছে সোশ্যাল মিডিয়াতেও।  শুধুমাত্র তাই নয়, দলের জেলা সভাপতি বিবেকানন্দ পাত্রর বিরুদ্ধেও দেওয়া হয়েছে ফেস্টুন। তাঁকে স্বৈরাচারী বলার সাথে সাথেই ‘তৃণমূলী এজেন্ট’ বলেও আক্রমণ করা হয়েছে। বিধানসভা নির্বাচন এবং দলের প্রার্থী ঘোষণার আগেই এই ধরনের দাবি এবং ফেস্টুন ঘিরে বিব্রত জেলার পদ্ম শিবিরের নেতারা।

সম্ভবত শুক্রবারই ঘোষণা করে দেওয়া হবে দলের কে কোন আসনে লড়াই করবেন তার তালিকা। তার আগেই এলাকাতে কোন বহিরাগতকে প্রার্থী করা হলে তারা মানবে না এবং  যদি তাদের দাবি মানা হয় তাহলে, জেলা সভাপতিকে হুঁশিয়ারি দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতেই দলের কর্মীরা লিখেছেন যে এই কেন্দ্রের ৯৪ টি বুথে খেলা দেখবেন দলের জেলা সভাপতি।

ভোটের দিন ঘোষণা হয়ে যাওয়ার পরেও জারি রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়ায় হিড়িক। তারই মধ্যে প্রার্থী নির্বাচন নিয়ে বিজেপির সর্বোচ্চ নেতৃত্বকে চুড়ান্ত হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে বাঁকুড়া জেলাতে। যে জেলার  দুটি আসনই তৃণমূল কংগ্রেসের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়েছে বিজেপি। 

 প্রথম দফাতে, ২৭ মার্চ, এই জেলার চারটি বিধানসভা কেন্দ্রের নির্বাচন। দ্বিতীয় দফায়, ১ এপ্রিল, জেলার বাকি সাতটি আসনে ভোট গ্রহণ। দ্বিতীয় দফাতে ভোট নেওয়া হবে তালডাংরা কেন্দ্রে।

এই জেলার বারোটি বিধানসভা কেন্দ্রে কারা  প্রার্থী হবেন তাই নিয়ে চলছে জোর জল্পনা। প্রার্থী তালিকা ঘোষণার আগেই , বৃহস্পতিবার সকালে, যেভাবে  তালডাংরা এলাকাতে ‘বহিরাগতর’ বদলে ‘ভূমিপুত্রকে’ প্রার্থী করার দাবিতে  সোশ্যাল মিডিয়াতে সরব হয়েছেন দলের কর্মী সমর্থকরা তাতে যথেষ্টই বিড়ম্বনা তৈরি হয়েছে পদ্মফুল শিবিরে।  ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে শোরগোল পড়ে গিয়েছে জেলার রাজনৈতিক মহলেও। বিষয়টি নিয়ে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব । তারা এই ঘটনাকে বিজেপির ‘বিনাশের সংকেত’ বলেই দাবি করেছেন।

অন্যদিকে এদিনও বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীর ছবি দিয়ে তার অনুমোদিত প্রার্থীর দাবিতে এ জেলার একাধিক এলাকায় ছয়লাপ হয়েছে পোস্টার ও ব্যানার।

এসবের মধ্যেই আবার দলের জেলা নেতৃত্বকে হুঁশিয়ারি দিয়ে নানা মন্তব্য লেখা বিভিন্ন ফেসবুক পোস্টে ছয়লাপ হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ার ওয়াল। কয়েকটি পোস্টে বক্তব্য লেখা রয়েছে তা যথেষ্টই তাৎপর্যপূর্ণ। বিজেপি কর্মীদের ওই সব  বড় বড় অক্ষরে লেখা রয়েছে, ‘বাঁকুড়া তালডাংরা বিধানসভার নাগরিকরা ডিটেনশন ক্যাম্পের বাসিন্দা নন। তাই বলছি- এখনও সময় আছে, প্রার্থীর নাম ঘোষনার আগে বিজেপি নেতারা সাবধান হন। এবারও যদি বহিরাগত কাউকে তালডাংরা বিধানসভায় প্রার্থী করা হয় তবে পরিণাম ভয়ংকর হবে।’ এইবার বহিরাগত কাউকে প্রার্থী করা হলে কী হবে তাও বলে দেওয়া হয়েছে এই সব সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্টে। দলের নেতাদের চরম হুঁশিয়ারি দিয়ে বলে দেওয়া হয়েছে,  ‘ভোটের দিন সাপ- লুডো খেলা খেলে দেবে তালডাংরার  জনগন’।  আবার অন্য ফ্লেক্স ও ব্যানারে লেখা রয়েছে, তালডাংরা বিধানসভার মানুষ দিচ্ছে ডাক বহিরাগত প্রার্থী নিপাত যাক, বিধানসভায়  ভূমিপুত্র প্রার্থী চাই। বিজেপি জিন্দাবাদ। ভারত মাতা কি জয়’।

যদিও এই বিষয়ে মুখ খুলতে নারাজ বিজেপির বাঁকুড়া সাংগঠনিক জেলার সভাপতি বিবেকানন্দ পাত্র। তিনি বলেন , “কে প্রার্থী হবেন তা সিদ্ধান্ত নেবেন দলের সর্বোচ্চ নেতৃত্ব।এখানে আমাদের কিছু করার নেই। যাকেই প্রার্থী করা হবে তাঁকে জেতাতেই আমরা সবাই মিলে ঝাঁপিয়ে পড়ব।”

Mailing List