‘গাঁজা কেসে ভরে দেবো’, হুমকি দিয়ে ব্যবসায়ীর ৫০ লাখি গাড়ি হাপিস করেন অনুব্রত মণ্ডল! চালকে একাধিক দামি গাড়ি মেলার পর উঠলো অভিযোগ

‘গাঁজা কেসে ভরে দেবো’, হুমকি দিয়ে ব্যবসায়ীর ৫০ লাখি গাড়ি হাপিস করেন অনুব্রত মণ্ডল! চালকে একাধিক দামি গাড়ি মেলার পর উঠলো অভিযোগ
19 Aug 2022, 06:15 PM

‘গাঁজা কেসে ভরে দেবো’, হুমকি দিয়ে ব্যবসায়ীর ৫০ লাখি গাড়ি হাপিস করেন অনুব্রত মণ্ডল! চালকে একাধিক দামি গাড়ি মেলার পর উঠলো অভিযোগ

 

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদনঃ "গাঁজা কেস দিয়ে জেলে ঢুকিয়ে দেবো"। নিজের গাড়ি ফেরত চাইতে গিয়ে এমন হুমকির শিকার হয়েছিলেন বীরভূমের এক গাড়ি ব্যবসায়ী। আর ব্যবসায়ীকে এই হুমকি দিয়েছিলেন স্বয়ং অনুব্রত মণ্ডল। এমনই দাবি করলেন অনুব্রত মণ্ডল যে গাড়িতে চড়েন তারা আসল মালিক প্রবীর মণ্ডল। শুক্রবার সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন, এতদিন ভয়ে অভিযোগ করতে পারিনি। আমাদের বেঁচে থাকা দুঃসহ করে দিয়েছিল ওই একটা লোক। এর আগে শুক্রবার সকালে বোলপুরের ভোলে ব্যোম রাইস মিলে হাজির হয় সিবিআইয়ের টিম। অভিযোগ, এই মিলের মালিক অনুব্রতর স্ত্রী ও তাঁর মেয়ে সুকন্যা।

আরও অভিযোগ, প্রায় ৪৫ বিঘা জমির ওপর তৈরি এই চালকল মাত্র ৮ লক্ষ টাকায় হাতবদল হয়েছিল। এক্ষেত্রেও  নিজের প্রভাব খাটিয়েছিলেন দিদির প্রিয় কেষ্ট। বিক্রেতারা বলছেন, তাঁদের এই চালকল বিক্রির কোনও ইচ্ছে ছিল না। কিন্তু মরিয়া অনুব্রতর জন্যই কার্যত জলের দরে মাত্র ৮ লক্ষ টাকায় তাঁরা এই মিল বিক্রি করতে বাধ্য হন। সেখানে গিয়ে একাধিক দামী ও বিলাসবহুল গাড়ি উদ্ধার করে সিবিআই। মনে করা হচ্ছে ধরা পড়ার আগে ভয়ে ওই গাড়িগুলোকে চালকলে ভিতর রেখে দেওয়া হয়েছিল অনুব্রতর নির্দেশেই। সিবিআই আধিকারিকরা তল্লাশি চালাতে গেলে দেখা যায়, চালকলের গ্যারাজে একের পর এক বিলাসবহুল গাড়ি। তার মধ্যে একটি ফোর্ড এন্ডেভর গাড়িও রয়েছে। সেই গাড়ির মালিক অনুব্রত নন। গাড়িটি মালিক প্রবীর মণ্ডল নামে স্থানীয় এক গাড়ি ব্যবসায়ী।

সিউড়ির বাসিন্দা প্রবীর মণ্ডল নামে ওই ব্যক্তি পেশায় গাড়ি ব্যবসায়ী। সঙ্গে ঠিকাদারির কারবার করেন তিনি। প্রবীরবাবু এদিন বলেন, ‘গাড়িটা দিয়েছিলাম বিশ্বকর্মা পুজোর সময়। ৪৬ লক্ষ টাকার গাড়ি দিয়েছিলাম। তিলপাড়া বাঁধ সংস্কারের কাজের বরাত পাওয়ার জন্য গাড়ি দিতে হয়েছিল। কিন্তু কাজ পাননি। তিনি জানান, পরে কাজ না পাওয়ায় গাড়ি ফেরত চাইলে অনুব্রত মণ্ডল হুমকি দিয়ে বলেন, গাঁজা কেসে জেলে ঢুকিয়ে দেব। জেলে থাকবি না গড়ি চড়বি বল’? তাঁর দাবি, তারপর থেকে ব্যবসা বন্ধ।প্রবীরবাবু বলেন, আমাদের শেষ করে দিয়েছে। এতদিন ভয়ে অভিযোগ করতে পারিনি।

Mailing List