অনির্বাণ কর মহাপাত্রের কবিতা, না-সেরে ওঠার গল্প

অনির্বাণ কর মহাপাত্রের কবিতা, না-সেরে ওঠার গল্প
13 Nov 2022, 11:59 AM

অনির্বাণ কর মহাপাত্রের কবিতা, না-সেরে ওঠার গল্প

anirban

অনির্বাণ কর মহাপাত্র

 

না-সেরে ওঠার গল্প

 

ক্ষত গভীরতর হয় তবে-

যতক্ষণ পর্যন্ত তা চূড়ান্ত ফল আনে

গল্প ছোটই থেকে যায়...

আপনারই দায়িত্ব, আপনি ভাবতে থাকুন

নইলে চড়ুইভাতি বা কালাতিপাত...

 

পৃথিবীর অনেককিছুই বেশ লোভনীয়

যখন আপনি ভোগের বাইরে

তখন ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র বস্তুও পরম ঈপ্সিত

কিন্তু, হায়, হাতে সময় নেই

 

সব ভালো, সবার জন্য নয়

এই সত্য যেদিন বুঝবেন, এবং

সেদিনের সেই ভালো আপনার স্প্যানিশ আলসার,

ক্ষত আর জীবন আপনাকে রায় শুনিয়ে দেবে

 

আর, যে-ভালো আপনি পান নি, পেতে পারতেন-

সেই ভালো অন্য কোথাও আরও ভালো

কিংবা বেবাক খারাপ আছে: সেই ক্ষত

যদি তাকে ক্ষতই ভাবেন, কেবলই ক্ষতি

 

যে ভালো আপনার জুটেছে

সে ভালোই এবং আর কিছুই ভালো  হতে পারতো না

অথবা, সবকিছু খারাপ আপনারই জুটেছে...

 

এত শত ক্ষত ও ক্ষতির খতিয়ান আপনাকে

এক অনাদি গোলোকধাঁধার সামনে ছেড়ে দেবে

তারচেয়ে, চলুন, স্টেশন এসে গেছে। নেমে পড়ি

জল-টল খেয়ে কাজে মন দিই।

 

বেকার মানুষ চারপাশে প্রচুর আছে...

..........

 

চক্র

 

শশব্যস্ত সারাক্ষণ, সময় কোথায়

তোমার অবোধ শিশু ধুলায় লুটায়

দু'চোখে স্বপ্ন বীজ ভ'রেছিলে সেদিন

পাপড়ি ঝরে ফুল আজ ধুলায় মলিন

চিরকাল একই দিন থাকে না কখনো

চাকা ঘুরে গেলে তুমি সত্তর-ঊন

প্রস্তুত থেকো তুমি সেই সময়েতে

যু্বা ব্যস্ত, তুমি শিশু লুটাবে ধুলাতে

.........

 

নিয়ম

 

চলতে ফিরতে পথের মাঝে

আলগোছেতে পেলে যাকে

মনের তাকে জায়গা পেতে

তাকে ভাসাবে নিজের হাতে

এটাই নিয়ম এই দুনিয়ায়

ফুল সার্থক শুকিয়ে যাওয়ায়।

 

বৈশাখের এক ভুলো বিকেলে

পথ ভাসাবে কান্না পেলে

জানবে না তো অন্য ভোরে

কুঁড়ি ফুটছে বাগান জুড়ে

পথময় ফুল ছড়িয়ে সবে

পৃথিবী থেকে বিদায় দেবে।

Mailing List