অজয় ঘোষর কবিতা- সেই তিনজন নারী ও সুপ্ত আগ্নেয়গিরি

অজয় ঘোষর কবিতা- সেই তিনজন নারী ও সুপ্ত আগ্নেয়গিরি
14 Mar 2021, 06:44 PM

অজয় ঘোষর কবিতা- সেই তিনজন নারী ও সুপ্ত আগ্নেয়গিরি

 

 

সেই তিনজন নারী

 

 

১.

যাবার আগে তোমায় একবার ছুঁয়ে দেখতে চাই

আগুন না জল,

মুখ ফিরিয়ে কাৎ হয়ে শুয়ে আছে

অসহায় শরীর

একটু আগে ফোঁপানো কান্নার শব্দ শুনেছি

এসময় আকাশে মেঘ না থাকলে জানালা দিয়ে

প্রতিদিন আসে জ্যোৎস্না

 

২.

 

বিতস্তাকে বহুকাল দেখিনি

গ্রীষ্মকালের নিম ফুলের গন্ধের সাথে তার খুব

মিল আছে

তেমনই মৃদু সৌরভ তার চলনে আর এলো খোঁপাতে

এখনও কাঁচ ভাঙার শব্দ হয় তার হাসিতে

কখনও জলতরঙ্গ বাজে

স্মৃতির ভিতরে তার চলাচল টের পাই রোজ

 

৩.

 

বাতাস ভারী হয়ে আসবে ভেবে পাল্লা জোড়া

ভেজিয়ে দেওয়া

ঈষৎ আলোর মত মেঘলা আকাশে

নদীর জলের সাথে মিল আছে খুব

একলাই মুখ দেখে ফলিত রসায়নে,

আমি তাকে ডাকি

'আয়না'  'আয়না' বলে ভর সন্ধ্যেবেলা ।।

              *****

 

 

 

সুপ্ত আগ্নেয়গিরি

 

বিষন্ন আলোর মধ্যে শুয়ে আছো তুমি

একটু অগোছালো

একটু শ্রান্ত,একটু বা ম্লান

পায়ের গোছের ওপর উঠে গেছে আটপোরে শাড়ির পাড়

বালিকার মত ভঙ্গিতে বিকেলের পূর্ণিমার চাঁদ,

অর্দ্ধেক আলোতে আর অর্দ্ধেক ছায়াতে

এ দৃশ্যে এখনও আমি তড়িদাহত হই

 

এই সব  স্বপ্নগুলো আমার প্রিয় ভারী

বিস্তৃত নদীর বুকে চর

দু চারজন পরিশ্রমী মানুষের ঘর 

চাষাবাদ নুন আনতে ফুরায় পান্তা

বর্ষার ঘোলা জলে ভেসে যায় সব

এ নদী একদিন যৌবনবতী ছিল বটে

এখন শুকনো দশমাস

শুধু স্মৃতির মধ্যে বেঁচে আছে লাল টিপ সিঁথিতে সিঁদূর

 

মধ্যরাতে এখনও কী জেগে ওঠে শরীর তোমার

কোনো কোনোদিন?

সেই বালিকা কী যুবতী হয় এখনো আঁধারে

বর্ষা নামে অফুরান ভেসে যায় কূলপ্লাবী স্রোতে

আবার জীবনের দিকে ফিরে যায় আলো নিয়ে হাতে?

 

এইসব

অভুক্ত মানুষের অবচেতন জুড়ে

শরশয্যা তৈরি করে জ্যোৎস্নার প্রান্তরে

মজা নদ…

      ******

Mailing List