ঐতিহাসিক বিদ্যাসাগর স্মৃতি মন্দিরের কাজ পরিদর্শন বিধায়ক জুন মালিয়ার, দিলেন পরামর্শও

ঐতিহাসিক বিদ্যাসাগর স্মৃতি মন্দিরের কাজ পরিদর্শন বিধায়ক জুন মালিয়ার, দিলেন পরামর্শও
16 Jun 2021, 03:34 PM

ঐতিহাসিক বিদ্যাসাগর স্মৃতি মন্দিরের কাজ পরিদর্শন বিধায়ক জুন মালিয়ার, দিলেন পরামর্শও

 

আনফোল্ড বাংলা প্রতিবেদন, মেদিনীপুর: রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্মৃতি বিজড়িত বিদ্যাসাগর স্মৃতি মন্দির। শুধু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কেন? কে আসেননি এই স্মৃতি মন্দিরে। সাহিত্য পরিষদের সভায় যোগ দিতে প্রখ্যাত ঐতিহাসিক থেকে সাহিত্যিক – এক কথায় তারকাদের সমাবেশ হত। তৎকালীন সময়ে সাংস্কৃতিক চর্চার পীঠস্থান ছিল এটিই। যা মেদিনীপুর শহরে অবস্থিত।

 

সেই ঐতিহাসিক বিদ্যাসাগর স্মৃতি মন্দিরকে ঢেলে সাজানোর জন্য পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। মেদিনীপুর-খড়্গপুর উন্নয়ন পর্ষদের অর্থ সাহায্যে চলছে সেই কাজ। এবার সেই কাজ পরিদর্শন করলেন মেদিনীপুরের বিধায়ক তথা অভিনেত্রী জুন মালিয়া। বর্তমানে এখানে চলছে উন্মুক্ত মঞ্চ তৈরির কাজ, আবাসন, টয়লেট ব্লক, ভেতরে রাস্তা নির্মাণ। চারদিক সুন্দর করে সাজিয়ে তোলার জন্য সব রকমের পদক্ষেপ করা হয়েছে। প্রতিটি বিষয় খুঁটিয়ে দেখেন বিধায়ক। সঙ্গে ছিলেন পর্ষদের চেয়ারম্যান তথা বিধায়ক দীনেন রায়, দায়িত্বপ্রাপ্ত ইঞ্জিনিয়ার আসিফ ইকবাল এবং চন্দন প্রামানিক, শান্তনু জানা, ঠিকাদার সংস্থার কর্তা তরুন চক্রবর্তী, সতীশরাজ বালিও।

সূত্রের খবর কাজে খুশি তিনি। কিভাবে কাজ হচ্ছে, তার ফলে কী হবে – সব কিছু জেনে নেন তিনি। তবে তারই সঙ্গে আরও একটি কাজ করার জন্যও এমকেডিএ-কে জানিয়েছেন বিধায়ক। কারণ, বিদ্যাসাগর স্মৃতি মন্দিরের মূল কাঠামোটির সংস্কার কাজ এখনও বাকি। যাতে সেই কাজটিও করা হয় সে বিষয়ে আলোকপাত করেন তিনি। এমনকী, সেটি করতে গেলে কোন পদ্ধতিতে করা উচিত, যাতে বেশি মানুষ বসতে পারবেন, দেখতে সুন্দর লাগবে এবং সাউন্ড পরিষ্কার হবে – সে বিষয়েও পরামর্শ দেন। বিধায়ক জুন মালিয়া যেহেতু নিজে এখন শিল্পী তাই এই সম্বন্ধে তাঁর ধারণাও স্বচ্ছ। সূত্রের খবর, ওই কাজটি করার সময় বিধায়ক যাতে নিজে পরামর্শ দিয়ে সাহায্য করেন সেই আবেদনও জানানো হয়েছে পর্ষদের পক্ষ থেকে।

Mailing List