ভাইপো হিসেবে নয়, জয় ছিনিয়ে নেতা হিসেবেই অভিষেক অভিষেকের

ভাইপো হিসেবে নয়, জয় ছিনিয়ে নেতা হিসেবেই অভিষেক অভিষেকের
03 May 2021, 12:57 PM

ভাইপো হিসেবে নয়, জয় ছিনিয়ে নেতা হিসেবেই অভিষেক অভিষেকের

 

যোগ্য সঙ্গত দিয়েছেন। একটানা ‘পিসি’ তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতোই ঘুরে বেড়িয়েছেন রাজ্যজুড়ে। বিজেপির আক্রমণের যোগ্য জবাব দিয়েছেন। তারই সঙ্গে রাজ্যের উন্নয়নের আগাগোড়া খতিয়ান তুলে ধরেছেন। যা মানুষের মনে গেঁথে দিতেও সক্ষম হয়েছেন। আর পিসি-ভাইপোর এই প্রচারেই কুপোকাৎ দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি থেকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সোনার বাংলার আশ্বাস। রাজ্যের মানুষ বিশ্বাস বজায় রাখলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ওপরেই।

 

আর তারই সঙ্গে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়েরও এবার অভিষেক হল ‘নেতা’ হিসেবে। এতদিন বিরোধীরা যাঁকে আটকে রাখতে চেয়েছিলেন ‘ভাইপো’-র মধ্যেই। কিন্তু লড়াইয়ের ময়দানে জয় ছিনিয়ে বুঝিয়ে দিলেন, তিনি শুধু মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে একটি সম্পর্কের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নন। শুধু সম্পর্কের জন্য তিনি সূযোগ পাননি। নিজে প্রার্থী না হয়ে, রাজ্যের সমস্ত প্রার্থীদের জেতানোর জন্য প্রখর গরমেও দিনভর প্রচার করে জয় ছিনিয়ে বুঝিয়ে দিলেন তিনি নেতা। এবং তা তাঁকে কেউ হাতে তুলে দেয়নি। নিজ গুনে তিনি উপযুক্ত নেতা।

 

না, এর জন্য তাঁকে কম সমস্যাতে পড়তে হয়নি। তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক দুর্নীতির অভিযোগ এনেছিলেন খোদ দেশের প্রধানমন্ত্রী থেকে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এমনকী, তাঁর স্ত্রীর বিরুদ্ধেও অভিযোগ এনে তাঁর বাড়িতে পর্যন্ত জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হাজির হয়েছিল সিবিআইয়ের তদন্তকারী আধিকারিকেরা। না, তাতেও তিনি পিছু হঠেননি। উল্টে প্রকাশ্য মঞ্চে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে বলেছিলেন, তাঁর নামে কোনও কেলেঙ্কারি প্রমাণ করতে পারলে তিনি ফাঁসিতে ঝুলে যাবেন। তিনি মানুষের কাছে প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছিলেন, তাঁকে হেনস্থা করার জন্য কেন্দ্রীয় সংস্থা কেন্দ্রীয় সরকারের অঙ্গুলিহেলনেই এমন করছে।

 

অভিষেক পাল্টা আক্রমণ করতে ছাড়েননি। তিনিও প্রকাশ্য মঞ্চে নাম ধরে বলেন, ‘‘অমিত শাহ বহিরাগত।’’ আর তাঁর কথা বিশ্বাস করেছেন মানুষ। তিনি উত্তরবঙ্গ থেকে দক্ষিণবঙ্গ - সর্বত্র ছুটে বেড়িয়েছেন। তারই ফসল উঠে এলো। বিজেপি শ্লোগান তুলেছিল, ইস বার দোশোপার। আর অভিষেক প্রমাণ করে তা তিনি দেখিয়ে দিলেন।    

Mailing List