◾রেহান কৌশিকের গুচ্ছ কবিতা

◾রেহান কৌশিকের গুচ্ছ কবিতা
23 Jan 2022, 11:00 AM

◾রেহান কৌশিকের গুচ্ছ কবিতা

 

সঙ্গী

 

কার্যত জলের দিকে ঝুঁকে আছি আজীবন।

 

জলই এনেছে এখানে, ভূমিতে রেখেছে।

পুনরায় নিয়ে যাবে সে-ই

                         দূর থেকে দূরে।

 

গর্ভজল থেকে নদীজল

আমাদের গল্প শুধু জলের কাহিনি।

 

আমি আসি। আমি যাই। তুমি যাবে? এসো।

..............

 

টান

 

শূন্য থেকে শুরু হয় সময়ের সমস্ত গণনা

 

ক্রমাগত এসে পড়ে ঘর

                       হলুদরংয়ের পাখি

                           পাতাঝরা, গার্হস্থ-বাসনা…

 

দেখি, ফুটে উঠছ তুমি--- অনন্ত বাউল

জেগে উঠছে চির-ডাক, গানে

 

পুনরায় ফেরা থাকে সমস্ত আসার

চলো ফিরি, ধুলোপায়ে অনিবার্য স্তব্ধতার টানে!

.................

 

 

পরিচর্যা

 

শতাব্দী-প্রাচীন ঘুম জেগে থাকে মমির ভিতর

এ হৃদয় সে-রকম প্রত্নপ্রাণ, নিষ্ঠ শবাধার

 

তোমাকে ধারণ ক'রে পার হয় কত জন্মান্তর!

 

খনন করেছে যারা, কখনও বন্ধু ছিল না তারা

দস্যু অথবা ঐতিহাসিক

 

মধ্যরাতে উঠে বসি একা

শত্রুর ডেরায় বসে মুছে দিই খননের দাগ

 

প্রতিজন্মে এভাবেই তোমাকে সাজিয়ে তুলি, তোমার প্রেমিক!

...........

 

কিছু কথা

 

কিছু কথা বাকি থেকে গেল

কিছু কথা জন্মালো না আর

কিছু কথা এই পার থেকে

ছুঁতে চায় সেতুর ওপার!

 

কিছু কথা রোদ্দুরে জ্যোৎস্নায়

লিখে যাবে অনন্ত-বন্দিশ

বিষাদের ব্যারিকেড ভেঙে

সেই সুর বুকে তুলে নিস…

 

অপার শূন্যতা দিয়ে গাঁথা

যত দেখা পুড়ে ছাই হল

তারা শুধু মৃত্যু স্মারক না

সময়ের পার্থিব সম্বলও…

 

কিছু কথা এভাবেই ওড়ে

ব্যক্তিগত বসন্ত-উৎসবে

কখনও বা ধুলোমাখা পথে

দ্রোহে আর দুরন্ত বিপ্লবে!

 

কিছু কথা বাকি থাকা ভালো

শুরু হবে অন্য কোনওদিন

এপার-ওপার মিশে গেলে

জেগে উঠলে প্রকৃত আশ্বিন…

..............

 

অমীমাংসিত

 

তুমি বলো, 'আমি'।

আমি বলি, 'আমি'।

 

মাঝখানে সুনিবিড় শ্লোক--- আমাদের প্রিয় কবুতর

ছুঁয়ে যায় অরণ্যের দুরন্ত-দুপুর!

 

কে বেশি সরল-সংগীত

বুনে দেয় নিরাকার আনন্দ-আত্মায়?

কে বেশি সুরের-আলো

রেখে যায় কফিকাপে, নক্ষত্রের সহজ-সন্ধ্যায়?

 

পাথরের স্তব্ধ বুকে কে কাকে চেনায় ঝর্না, স্রোত?

কে কার শরীরে অন্ধ? পতঙ্গের নিপুণ বিস্তার?

 

এ-রকম তর্ক নয় আর

মীমাংসার সিঁড়ি চাওয়া আমাদের সম্পর্কের ভুল।

 

ভালোবাসা চিরকাল অমীমাংসিত ছিল

ভালোবাসা চিরকাল অমীমাংসিত থাকে।

...........

 

শ্লোক

 

ডুবে যাই কুয়াশায় রোজ।

প্রতিদিন পথে-পথে উড়ি একা শিশিরে-শিশিরে...

       কে আমায় ফেরাবে আলোতে

       কে আমায় ডেকে নেবে বুকে?

                               জল থেকে তুলে নেবে তীরে?

 

কিছু-কিছু অন্ধকার সারে না কখনো

কিছু-কিছু আলো আরও অধিক অসুখ!

 

তাহলে কী হবে বলো, ভেসে যাওয়া আমার এখন?

জমেছে অপ্রাপ্তি এত, এত ভুলচুক?

 

ভালোবেসে ছুঁয়ে দ্যাখো অন্তত একবার

বাসনার ক্ষত ভেঙে দেখা যাক সহজ আলোক...

 

অন্তত মৃত্যুর আগে কোনো কবি যেন জেনে যায়

ছিল ছিল, কেউ ছিল তার

                       ছিল তার বৃষ্টিভেজা অকৃপণ শ্লোক!

                                                  

                            <<<>>>

ads

Mailing List